Featured Post

কপিরাইট ফ্রি ইউটিউব ব্যাকগ্রাউন্ড মিউজিক কোথায় পাবেন ! কি ভাবে YouTube Background Music ব্যবহার করবেন !

আসসালামুয়ালাইকুম, আশা করি আপনারা সবাই ভাল আছেন ! আপনাদের দোয়ায় আমিও অনেক ভালো আছি ! হৃদয় টেকনিক্যাল গ্রুপের পক্ষ থেকে আপনাদের সবাইকে প্র...

Thursday, May 14, 2020

কম্পিউটার সফটওয়্যার কি ? সফটওয়্যার কত প্রকার ও কী কী?

কম্পিউটার সফটওয়্যার কি ? 
সফটওয়্যার কত প্রকার ও কী কী? 


সফ্টওয়্যার হলো প্রোগ্রাম এর একটি সেট যা একটি কম্পিউটারকে একটি নির্দিষ্ট কাজ শেষ করার জন্য নির্দেশ দেয়। এটি ব্যবহারকারীকে কম্পিউটারে কাজ করার ক্ষমতা দেয়। আসলে আপনি চিন্তা করলে দেখবেন, সফটওয়্যার ছাড়া কম্পিউটার পুরো অচল।

আপনি নিজের চোখ দিয়ে সফ্টওয়্যারটি দেখতে পাচ্ছেন না। কিংবা হাত দিয়ে ছোঁয়াও যায় না। কারণ এর কোন শারীরিক অস্তিত্ব নেই। এটি ভার্চুয়াল অবজেক্ট যা কেবল বোঝা যায়।আপনার কম্পিউটারে যদি সফ্টওয়্যার না থাকে তবে আপনার কম্পিউটারটি মৃত প্রাণীর মতো হবে। বলতে পারেন লোহা লক্কর যুক্ত একটা বক্স বা নেটওয়ার্ক ছাড়া সিম।

‘ওয়ার্ল্ড ওয়াইড ওয়েব’ ওয়েব নামে পরিচিত। ওয়েব একটি সিস্টেম যেটা ইন্টারনেট এর মাধ্যমে হাইপারটেক্সট ডকুমেন্টকে ব্যবহার করতে সাহায্য করে। একটি ওয়েব ব্রাউজার দিয়ে, এক লেখা, চিত্র, ভিডিও, এবং অন্যান্য মাল্টিমিডিয়া যে ওয়েব পেজে দেখানো যায়।

আপনার কম্পিউটারে ব্রাউজার না থাকলে আপনি এই আর্টিকেল টি পড়তে পারতেন না। এগুলি ছাড়াও, এমএস অফিস , ফটোশপ, অ্যাডোব রিডার, পিকাসা সমস্ত সফ্টওয়্যার যা আপনি কম্পিউটারে ব্যবহার করে থাকেন।

সফটওয়্যার দুই প্রকার হয়ে থাকে। এগুলো হলো:

১. অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার
২. অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার

এগুলোর বর্ণনা:
১. অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার: কোন কম্পিউটার বাই স্মার্ট ডিভাইসের মৌলিক কমান্ডগুলো অপারেটিং সিস্টেম সফটওয়্যার এর মধ্যে থাকে। এটি ছাড়া সাধারণত কোন স্মার্ট ডিভাইস বা কম্পিউটার ব্যবহারযোগ্য হয়না।

যেমন:

  • কম্পিউটার বা ল্যাপটপের জন্য: উইন্ডোস এক্সপি, উইন্ডোজ টেন ইত্যাদি
  • স্মার্টফোনের জন্য : অ্যান্ড্রয়েড 1 থেকে 10 পর্যন্ত।(বর্তমান সময়ে অ্যান্ড্রয়েড 10 পর্যন্তই বের হয়েছে)
  • স্মার্টফোনের জন্য (আপেল): আইওএস 1 থেকে 13 পর্যন্ত। (বর্তমান সময়ে আইওএস 13 পর্যন্তই বের হয়েছে)


২. অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার: যে সকল সফটওয়্যার কোন নির্দিষ্ট কাজের জন্য ব্যবহার করা হয় সেগুলো কে অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার বলে।

যেমন: 

  • কম্পিউটারের জন্য: এম এস অফিস ওয়ার্ড এর সফটওয়্যার সমূহ, এডোবি এর সফটওয়্যার সমূহ ইত্যাদি।
  • স্মার্টফোন বা স্মার্ট ডিভাইসের জন্য ফেইসবুক, টুইটার, মেসেঞ্জার, ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউব ক্যামেরা ইত্যাদি।



সিস্টেম সফটওয়্যার ও  প্রকারভেদ --

কম্পিউটার হার্ডওয়্যার এবং অ্যাপ্লিকেশন প্রোগ্রামগুলো কার্যকর রাখার জন্য সাহায্যকারী প্রোগ্রামসমূহকে সিস্টেম সফটওয়্যার বলে। অপারেটিং সিস্টেম, সিস্টেম সফটওয়্যারের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ। ইহা কম্পিউটারকে ব্যবহার উপযোগী করে তাহলে। সিস্টেম সফটওয়্যার হল এমন এক প্রকার প্রোগ্রামের সমষ্টি যেগুলোর সাহায্যে কম্পিউটার সকল হার্ডওয়্যার ও সফটওয়্যারকে নিয়ন্ত্রণ, তত্ত্বাবধান এবং সফটওয়্যার পরিচালনা, নিয়ন্ত্রণ ও কার্যকরি করতে সমর্থন এবং সাহায্য করে। সিস্টেম সফটওয়্যার কম্পিউটার ব্যবহারকারীর সাথে সফটওয়্যার এবং হার্ডওয়্যারের যোগাযোগ স্থাপন করে। সিস্টেম সফটওয়্যার ছাড়া কম্পিউটার পরিচালনা করা যায় না।

সিস্টেম সফটওয়্যারে সাধারণত কয়েক ধরনের  প্রোগ্রাম থাকে। এগুলো হলোঃ

সিস্টেম সফটওয়্যার সাধারণত তিন ধরনের --
১. সিস্টেম কন্ট্রোল প্রোগ্রাম
২. সিস্টেম সাপোর্ট প্রোগ্রাম
৩. সিস্টেম ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রাম

এগুলোর বর্ণনা:

১. সিস্টেম কন্ট্রোল প্রোগ্রাম  তিন ধরনের --

  • অপারেটিং সিস্টেম
  • ডেটাবেস ম্যানেজমেন্ট সিস্টেম
  • কমিউনিকেশন মনিটর প্রোগ্রাম


২. সিস্টেম সাপোর্ট প্রোগ্রাম তিন ধরনের --

  • সার্ভিস প্রোগ্রাম
  • সিস্টেম পারফরমেন্স মনিটর
  •  সিস্টেম সিকিউরিটি মনিটর


৩. সিস্টেম ডেভলপমেন্ট প্রোগ্রামদুই ধরনের  --

  • অনুবাদক প্রোগ্রাম (যেমন- কমপাইলার, ইন্টারপ্রেটার)
  • এপ্লিকেশন প্রোগ্রাম ডেভলপমেন্ট সিস্টেম


বিভিন্ন ধরণের কম্পিউটার সফটওয়্যার – 


আমরা বিভিন্ন কাজে কম্পিউটার ব্যবহার করি এবং কম্পিউটারের সমস্ত কাজ কেবলমাত্র একটি সফটওয়্যারের সাহায্যে করা যায় না।তাই কাজের প্রয়োজন অনুযায়ী বিভিন্ন সফটওয়্যার তৈরি করা হয়। জানার সুবিধার্থে দুটি প্রধান শ্রেণীর সফ্টওয়্যার তৈরি করা হয়েছে।


সিস্টেম সফ্টওয়্যার ও অ্যাপ্লিকেশন সফ্টওয়্যার --


1. সিস্টেম সফ্টওয়্যার
সিস্টেম সফ্টওয়্যার হলো সফ্টওয়্যার যা হার্ডওয়্যার পরিচালনা করে এবং নিয়ন্ত্রণ করে এবং হার্ডওয়্যার এবং সফ্টওয়্যার এর মধ্যে একটি কলাব্রেশন করে দেয়। অনেক ধরণের সিস্টেম সফটওয়্যার রয়েছে।

অপারেটিং সিস্টেম :
অপারেটিং সিস্টেমটি এমন একটি কম্পিউটার সফটওয়্যার যা অন্যান্য কম্পিউটার প্রোগ্রাম বা সফটওয়্যার গুলোকে পরিচালনা করে। অপারেটিং সিস্টেম ব্যবহারকারী এবং কম্পিউটারের মধ্যে মধ্যস্থতাকারী হিসাবে কাজ করে। এটি কম্পিউটারে আমাদের নির্দেশাবলী ব্যাখ্যা করে।

ইউটিলিটিস :
ইউটিলিটিগুলি পরিষেবা প্রোগ্রাম হিসাবেও পরিচিত। এই কম্পিউটারগুলি রিসোর্সগুলি পরিচালনা ও সুরক্ষার কাজটি করে থাকে। তবে এগুলি সরাসরি হার্ডওয়্যারের সাথে সংযুক্ত নয়। যেমন, ডিস্ক Defragmenter, অ্যান্টি ভাইরাস প্রোগ্রাম ইত্যাদি ইউটিলিটি প্রোগ্রাম।

ডিভাইস ড্রাইভার:
ড্রাইভার একটি বিশেষ প্রোগ্রাম যা ইনপুট এবং আউটপুট ডিভাইসগুলিকে একটি কম্পিউটারের সাথে সংযুক্ত করে যাতে এটি একটি কম্পিউটারের সাথে যোগাযোগ করতে পারে। যেমন, অডিও ড্রাইভার, গ্রাফিক ড্রাইভার, মাদারবোর্ড ড্রাইভ ইত্যাদি

2.অ্যাপ্লিকেশন সফ্টওয়্যার
অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যারটি এন্ড ইউজার সফটওয়্যার বলা যেতে পারে, কারণ এটি সরাসরি ব্যবহারকারীর সাথে সম্পর্কিত। একে ‘অ্যাপস’ নামেও অভিহিত করা হয়। অ্যাপ্লিকেশন সফ্টওয়্যার ব্যবহারকারীদের যে কোনও নির্দিষ্ট কাজ সম্পাদনের স্বাধীনতা দেয়। অ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যারের অনেক ধরণের রয়েছে।

বেসিক অ্যাপ্লিকেশন:
বেসিক অ্যাপ্লিকেশনগুলিকে সাধারণ উদ্দেশ্য সফ্টওয়্যারও বলা হয়। এগুলি সাধারণ ব্যবহার সফ্টওয়্যার। আমরা এগুলিকে দৈনন্দিন কাজের জন্য ব্যবহার করি।


যে কোনও কম্পিউটার ব্যবহারকারীর কম্পিউটারে কাজ করার জন্য বেসিক অ্যাপ্লিকেশনটি অবশ্যই ব্যবহার করা উচিত।



No comments:

Post a Comment